News

‘‘কার জন্য? সমতার জন্যে মুক্ত জ্ঞান’’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বাংলাদেশে উদযাপিত হবে ওপেন একসেস উইক

এল.ভি.ডেস্ক: ওপেন একসেস উইক বা উন্মুক্ত প্রবেশাধিকার সপ্তাহের প্রচলন শুরু হয় দুটি সংগঠন স্টুডেন্টস ফর ফ্রি কালচার এবং অ্যালায়েন্স ফর ট্যাক্সপেয়ারস এর উদ্দ্যোগে। যার অন্যতম পৃষ্ঠপোষক ছিল Scholarly Publishing and Academic Resources Coalition (স্পার্ক)। ইন্টারন্যাশনাল ওপেন একসেস উইক ২০১৯ সালে দ্বাদশতম বছরে প্রবেশ করছে। মুক্ত গবেষনা, মুক্ত তথ্য ও মুক্ত শিক্ষার সুবিধাগুলি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবহিত করার প্রয়াস নিয়েই ওপেন একসেস উইক এর অগ্রযাত্রা সূচিত হয়েছিল।

২০০৭ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারি, সংগঠন দুটি প্রথমবারের মতো এই ওপেন একসেস দিবস পালন করে, যা ছিল অনানুষ্ঠানিক একটি অনুষ্ঠান। ২০০৮ সালের ১৪ই অক্টোবরকে ওপেন একসেস দিবস হিসেবে নামকরণ করা হয় এবং ধীরে ধীরে এই দিবসটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। মূলত ২০০৯ সাল থেকে ওপেন একসেস দিবস অনুষ্ঠানটি সপ্তাহব্যাপী বর্ধিত করা হয়, এবং তখন থেকেই এর নামকরণ করা হয় ওপেন একসেস উইক বা উন্মুক্ত প্রবেশাধিকার সপ্তাহ। ২০১১ সাল থেকে এটি প্রতি বছর অক্টোবর মাসের শেষ সপ্তাহ জুড়ে বিশ্বব্যাপী পালিত হয়ে আসছে ওপেন একসেস উইক বা উন্মুক্ত প্রবেশাধিকার সপ্তাহ।

Open Access Weak 2019 Bangla Banner

বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান Scholarly Publishing and Academic Resources Coalition (স্পার্ক ) আন্তর্জাতিক এই দিবসটি উদযাপনের মূল পৃষ্ঠপোষকের দায়িত্ব পালন করে থাকে। ২০১৯ সালে এই সপ্তাহটির প্রতিপাদ্য হলো “Open for Whom? Equity in Open Knowledge” যার বাংলা রূপ “কার জন্য? সমতার জন্যে মুক্ত জ্ঞান’’। ২০১৯ সালে সপ্তাহটির বাংলা প্রতিপাদ্যটি প্রণয়ন করেন ওপেন একসেস বাংলাদেশ টিমের সদস্যবৃন্দ। ২০০৭ সাল থেকে ইন্টারন্যাশনাল ওপেন একসেস উইক উদযাপনের পর থেকে এই প্রথমবারের মতো বাংলা প্রতিপাদ্য , “কার জন্য? সমতার জন্যে মুক্ত জ্ঞান ” নিয়ে বাংলাদেশে এই সপ্তাহটি উদযাপন করা হবে।

ওপেন একসেস বাংলাদেশ ২৬ শে অক্টোবর, ২০১৯ ঢাকার কবি সুফিয়া কামাল গণগ্রন্থাগার মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার অয়োজন করেছে। যেখানে দেশ বরেণ্য শিক্ষাবিদ, আমলা, গবেষক, লাইব্রেরিয়ান এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করবে। উক্তদিনের অনুষ্ঠানটি সকাল ৯.৩০ ঘটিকায় বর্ণাঢ্য র‌্যালীর মাধ্যমে আরম্ভ হবে। ওপেন একসেস বাংলাদেশের এই অয়োজনের স্ট্রাটেজিক পার্টনার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা পরিষদ ও এসএলডি এবং মিডিয়া পার্টনার হিসাবে রয়েছে টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভি, জাগরণীয়া এবং সারা বাংলা ডট নেট।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close