Blog Post

ড. রেজা ভাইয়ের অমর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি!!

লেখিকা: ড. উষা রানী বড়ুয়া, লাইব্রেরিয়ান, সিরডাপ।


বেলিড এর চেয়ারম্যান ড.মির্জা মোহাম্মদ রেজাউল ভায়ের সাথে আমার ব্যক্তিগত ভাবে পরিচয় ২০১৪ সালে আমাদের অফিস সিরডাপে। মুলত শ্যামাপ্রসাদ স্যার এর মাধ্যমে পরিচয় হয়েছিল আমাদের। আমরা (সিরডাপ) আর বেলিড একসাথে কয়েকটি যৌথ প্রোগ্র্যাম করেছিলাম। রেজাউল ভাইয়ের ছিল অসম্ভব ভালো একটা গুণ, মানুষকে খুব সহজেই মুগ্ধ করে ফেলতে পারতো উনি। উনাকে আমাদের এক্স ডিজি স্যার Dr Cecep Effendi, Ex ICD Director Dr.Vasanthi Madam এবং বর্তমান ডিজি Mr.Tevita স্যার খুব পছন্দ করতেন। গত বছর নভেম্বর মাসে সিরডাপ আর BALID এর মধ্যে Memorandum of Understanding (MOU) চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির জন্য জন্য উনি কয়েকবার সিরডাপে একাই এসেছেন এবং আমার সাথে নানা ধরনের নানা বিষয়ে অনেক গল্প হয়েছিল তার। মানুষ টিকে সব সময় হাসি-খুশি থাকতে দেখেছি ! খুবই প্রাণবন্ত, একজন মানুষ ছিলেন।মাঝে মধ্যে দুষ্টামি ও করতেন।আমাকে বলতেন আপনি তো এখন বাংলাদেশি বধু। আমি ফোন করলেই বলতেন ঊষা, নমস্কার! যত দিন ফোন করেছি, উনি ঠিক সেই এক্ভাবেই বলতেন, ড. উষা, নমস্কার! বলেন, আপনার জন্য কি করতে পারি? তিনি সত্যিই অত্যন্ত নিবেদিত প্রাণ ছিলেন বেলিড এর জন্য। ব্যক্তিত্বসম্পন্ন এই মানুষটি বেলিডের জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতেন! কারো জন্য অপেক্ষায় থাকতেন না। হৃদয়ে সাহস ও শক্তি ছিল সম পরিমান। ছিলেন অসম্ভব জনপ্রিয়। সবাই কে খুব সহজেই আপন করে নিতে পারতেন। একদিন কথার ছলে আমাদের ডিজি স্যারকে উনি বলেছিলেন তার বয়স প্রায় ষাট এর কাছাকাছি।কিন্তু নিজের বয়সকে কোনদিন পাত্তা দেননি।কেবল কাজ আর কাজ নিয়ে কাটিয়েছেন সারাক্ষন। কাজ পাগল এই মানুষ টি সবার প্রিয়জন ছিলেন। আহারে রেজা ভাই! হঠাৎ করে সবাইকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে এই পৃথিবী থেকে অকালে বিদায়টা সত্যিই মেনে নেওয়া যায়না। ঈশ্বর, আপনাকে স্বর্গবাসী করুক!!আপনার অসাধারন বন্ধু সুলভ সদাচরন, আপনার মিস্টতা, আপনার কর্মউদ্দীপনা, আপনার আন্তরিকতা, আপনার হাস্যজ্জল চেহারা আমাদের হৃদয়ে অমলিন হয়ে থাকবে বছরের পর বছর, যুগের পর যুগ……ভালো থাকুন ওপারে খুব ভালো….!!!

 

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close