Blog Post

আপনার স্কুল লাইব্রেরিয়ানকে উপেক্ষা করবেন না, তারা সাক্ষরতার গোপন সৈনিক

স্কুল লাইব্রেরিয়ানদের নিয়ে দ্যা গার্ডিয়ান পত্রিকা প্রকাশিত Don’t overlook your school librarian, they’re the unsung heroes of literacy শিরোনামে প্রকাশিত প্রবন্ধটি ল্ইাব্রেরিয়ার ভয়েসের জন্যে অনুবাদ করেছেন মুবাশ্বিরা মাহমুদা সুপ্তী।


স্কুল লাইব্রেরিয়ান

স্যালি ড্রিং এর মতে স্কুল লাইব্রেরিয়ানরা সাধারণত উদ্বেগজনকভাবে অবমূল্যায়িতই হয়ে থাকেন। কিন্তু অনেক শিক্ষকরাও এটা ভেবে অবাক হবেন যে কি পরিমাণ সহায়তা তারা শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের দিয়ে থাকেন। হয়তো তারা নিজেরাও সেটা জানেন না।

শিক্ষাদান এবং শেখার বিষয়ে কথা বলার সময়, অধিকাংশ মানুষ তাতক্ষণিকভাবে গ্রন্থাগারিকদের কথা মনে করেন না। কিন্তু একটি স্কুলে যেখানে লাইব্রেরিয়ান বা লার্নিং রিসোর্স সেন্টার ম্যানেজারযখন যথাযথভাবে মূল্যায়িত হন এবং তাকে যথাযথভাবে ব্যবহার করা হয়,  তখন গুরুত্বপূর্ণ অনেক কিছুই তার কাছ থেকে পাওয়া সম্ভব।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গ্রন্থাগারিকগণ সাধারণত একটি সুবিধাজনক অবস্থানে থাকেন বলেই বলা যায় কারণ তারা সামান্য দূরত্ব থেকে একটি স্কুলের অভ্যন্তরীণ সকল কর্মকাণ্ডকে পর্যবেক্ষণ করে, সকল বয়সের এবং সকল বিভাগের  শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সাথে কাজ করার সক্ষমতা রাখেন যেটা অন্য কারো পক্ষে করাটা একটু কঠিন।

সাধারনত বলা হয়ে থাকে যে শিক্ষার্থীরা তাদের প্রয়োজনীয় কোন তথ্য খোঁজার জন্য শুধুমাত্র প্রযুক্তির ব্যবহার করে থাকে কিন্তু এই কথা পুরোপুরি সত্য নয়। শিক্ষার্থীরা তাদের গবেষণার কাজের জন্য মূলত প্রথমে গ্রন্থাগারে যায় কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তারা বুঝতে পারে না যে তারা কোথা থেকে কোন কাজ শুরু করবে। তাই তারা কষ্ট করার চেয়ে সবচেয়ে সহজ উপায় গুগলে গিয়ে নির্দিষ্ট বিষয় খুঁজতে শুরু করে। বেশিরভাগ সময় গুগল তাদের সরাসরি উইকিপিডিয়াতেই নিয়ে যায় কারণ উইকিপিডিয়া সাধারণত গুগলের প্রথমেই থাকে এক্ষেত্রে নিচের দিকে থাকা অন্যান্য অনেক সোর্স গুলোই হয়ত এড়িয়ে যাওয়া হয়।এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে অনেক শিক্ষার্থীই তাদের এই কাজের জন্য ব্যাখ্যা দেয় যে, যদি উইকিপিডিয়াটি সহজভাবে ব্যবহার করা যায় তবে আপনি সহজেই এটি ব্যবহার করতে পারেন। এতে তারা কোন দোষ খুঁজে পায় না কিন্তু তাদের মূলত এই ব্যাখ্যা পৌছে দেওয়া প্রয়োজন যে, যদি তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হয় তাহলে শুধুমাত্রে তাদের উইকিপিডিয়ার পাদটীকা গ্রহণ করা উচিত হবে না ।

একজন গ্রন্থাগারিক মূলততথ্য ব্যবস্থাপনায় বিশেষভাবে বিশেষজ্ঞ হয়ে থাকেন এবং তারা তাদের শিক্ষার্থী এবং অন্যান্য কর্মীদের জন্য গবেষণা, শিক্ষাদান বা শিক্ষা সম্পর্কিত যে কোন বিষয়ে তাদের প্রাসঙ্গিক, নির্ভরযোগ্য সূত্র প্রদান করে তথ্য খুঁজে পেতে সাহায্য করেন। গ্রন্থাগারিকগণ  ক্ষেত্র বিশেষে তথ্য সাক্ষরতার শিক্ষাও প্রদান করেন।  এমনকি প্রয়োজন হলে অন্যান্য শিক্ষককেও তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞানপ্রদান করে থাকেন। এছাড়াও কেউ কেউ যখন কোন নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার শিখতে চান অথবা আপডেট কোন প্রোগ্রাম এবং ওয়েবসাইট ব্যাবহার করতে গিয়ে কোন সমস্যায় পড়লে তখন ও গ্রন্থাগারিকগণ সাহায্য প্রদান করে থাকেন।

এটি সত্য যে শিক্ষকগণ স্বভাবতই ব্যাস্ত এবং তাদের হাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় থাকে না যে তারা গ্রহণকৃত সমস্ত উৎস হতে তথ্যের যাচাই বাছাই করবেন অথবা সঠিকভাবে তাদের মূল্যায়ন করবেন।যদি তারা এই কাজটিকে অনেক সময়সাপেক্ষ ও তাদের পক্ষে কষ্টকর বলে মনে করেন অথবা গবেষণার ক্ষেত্রে সাহায্যের দরকার হয় তাহলে এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হবে যদি স্কুল লাইব্রেরিয়ানের সাহায্য নেওয়া হয় এবং লাইব্রেরিয়ান ও এ ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পেরে খুশিই হবেন আশা করা যায় কারণ এটি তার কাজেরই একটি অংশ।

শিক্ষার্থীদের সাহায্য করার ক্ষেত্রেও গ্রন্থাগারীকের ভূমিকা রয়েছে। শিক্ষার্থীরা কি কি তথ্য খুঁজে পেয়েছে তা মূল্যায়ন করা এবং তাদের তৈরিকৃত নোটগুলো যাতে প্লেজারিজমের আওতায় না পড়ে সে ব্যাপারে লাইব্রেরিয়ানগণ তাদের সাহায্য করে থাকেন। মূলত তাদের আরো ভালো ও স্বাধীন গবেষক হতে তারাই মূল ভিত্তি গড়ে সহায়তা করে থাকেন।

বেশিরভাগ স্কুল লাইব্রেরিতে তাদের নিজস্ব ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম থাকা উচিত, এটি হবে এমন একটি ক্যাটালগ যা ছাত্র, শিক্ষক এবং কর্মী সবাই ব্যবহার করতে পারবে।এইঅনলাইন ডাটাবেসে বিভিন্নপত্রিকা, নিবন্ধ এবং উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর ঠিকানা, পাশাপাশি বিভিন্ন বইয়ের বিবরণ ও এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হবে যাছাত্রদের গবেষণা শুরু করার জন্য একটি ভাল প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে। শিক্ষকরা যদি তাদের স্কুলে লাইব্রেরিয়ান এর যথাযথ ব্যবহার এবং মূল্যায়ন শুরু করে তবে ছাত্ররাও একই কাজ করবে এটাই স্বাভাবিক এবং বই ও অন্যান্য পেপারনিজে নিজে ফটোকপি করার চেয়ে তথ্যের সাহায্যের জন্য গ্রন্থাগারিকের কাছ থেকে বেশি সাহায্য চাইবে।

সাক্ষরতার ব্যাপারে উত্সাহিত করা স্কুল লাইব্রেরিয়ানের কাছে একটি স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য।যেহেতু প্রতিটি ছাত্রের স্বভাব এবং বৈশিষ্ট্য স্বতন্ত্র। তাই গ্রন্থাগারিকগণও সর্বদা সঠিক শিক্ষার্থীর জন্য সঠিক বইটি খুঁজে পেতে সহায়তা করে। স্যালি ড্রিং বলেন – “আমি আমার স্কুলে সাক্ষরতার সমন্বয়কারীর ভূমিকা অর্জনের জন্য ভাগ্যবান ছিলাম। এই স্কুলটি লাইব্রেরিয়ানের সাথে পাশাপাশি স্কুলের বিভিন্ন বিভাগের সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ করে থাকে।“

গ্রন্থাগারিকদের উচিত পাঠ্যক্রমের প্রতিটি নতুন পরিবর্তনকে শিক্ষকদের সাথে ভাগ করে নেওয়া। – আমাদের নিত্য নতুন বই এবং কিছুটা ভিন্নধর্মী উপাত্ত খুঁজে বের করতে হবে যেগুলো হবে নির্ভরযোগ্য এবং পাঠ্যক্রম ভিত্তিক তথ্য সহ । এছাড়াও ছাত্রদের জন্য উপযুক্ত বিভিন্ন ডেটাবেসে সাবস্ক্রাইব করা উচিত যাতে যেকোন সময় সেখান থেকে ডাটা ব্যবহার করা যায়। গ্রন্থাগারিকগণ আপনাকে উপযুক্ত ওয়েবসাইটগুলির একটি তালিকা তৈরি করতে সহায়তা করতে পারেএবং স্বাধীনভাবে তথ্য খুঁজতে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় দক্ষতাগুলির পরিচালনাও করতে পারে।

যেহেতু স্কুলে লাইব্রেরী রাখা কোন সাংবিধানিক নিয়ম নয় তাই স্কুলের লাইব্রেরিয়ানদের জন্য কোন রকমের সেট মডেল অথবা কোন নির্দিষ্ট স্ট্যাটাস ও বেতন স্কেল নির্ধারণ করা নেই ।আমি ভাগ্যবান যে আমি সবসময় আমার সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট এর কাছ থেকে আমি সাহায্য ও সহোযোগিতা পেয়েছি। কিন্তু সকলের অবস্থান আমার মত নয়। অনেক স্কুলেই লাইব্রেরিয়ানগণ শুধুমাত্র অতিরিক্ত আইটি স্যুট অথবা লেবেল স্ট্যাম্পার হিসেবে বিবেচিত হন যা সত্যিই দুঃখজনক এবং এটি লাইব্রেরিয়ান্দের জন্য হতাশাজনক ও বটে।

তাই আপনার স্কুল লাইব্রেরিয়ান এর প্রকৃত মূল্যায়ন করতে ভুলবেন না। তারা আপনাকে কতটা সমর্থন দেবে এবং আপনার কতটা সময় বাঁচাতে পারবে সে সম্পর্কেজানলে সত্যিই অবাক হবেন। এবং এটি সত্যি যে তারা তাদের প্রকৃত মূল্যায়ণ চান।

Show More

Related Articles

5 Comments

  1. সত্যি অসাধারণ একটি পোস্ট। একজন গ্রন্থাগারিক হিসেবে গর্ব বোধ করছি। গ্রন্থাগারিক হিসেবে আমি সবরকম সহযোগিতা পেয়েছি এবং পাবো আশা রাখছি কর্তৃপক্ষের কাছে। এর মর্যাদা স্বরূপ শিক্ষার প্রসারে, শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের সীমাকে নির্দিষ্ট গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ না রেখে আরও উচ্চতরে নিয়ে যাওয়ার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছি। ধন্যবাদ এতো সুন্দর একটি পোস্টের জন্য।।

  2. অসাধারণ! বিদ্যালয় গ্রন্থাগারিক হিসেবে আত্মমর্যাদা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে!

  3. Very much relevant to the present scenerio esp to the treatment of school librsrians by the respective school authorities in our state. Thanks for such a valuable post.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close